রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২
The Report
চিকিৎসার্থে সাহায্যের আবেদন- অবুঝ শিশু সিনহার হার্টে ছিদ্র, সন্তানকে বাঁচাতে মায়ের আকুতি

চিকিৎসার্থে সাহায্যের আবেদন- অবুঝ শিশু সিনহার হার্টে ছিদ্র, সন্তানকে বাঁচাতে মায়ের আকুতি

টিএনএন ডেস্ক
প্রকাশের সময় : July 05, 2022 | স্বাস্থ্য

আশরাফুজ্জামান সরকার, গাইবান্ধাঃ- অবুঝ শিশু সিনহা জন্মের পর থেকেই অসুস্থ্য । এখন তার বয়স ১১ মাস। বড় হতে হতে সে আরও অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। এক সময় ধরা পড়ে, তার হার্টে ছিদ্র আছে। এর জন্যই অসুস্থ্য সিনহা। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, মেডিসিন নয়, সুস্থ্য হতে সিনহার অপারেশন করতে হবে। যার জন্য প্রায় দুই থেকে আড়াই লাখ টাকা খরচ হবে। ইতিমধ্যেই সন্তানের জন্য মানুষের দ্বারে হাত পেতে বেশ কিছু টাকা খরচ করেছেন দরিদ্র মা । তার পক্ষে এই দুই বা আড়াই লাখ টাকা জোগাড় সম্ভব নয়, বরং দুঃস্বপ্ন। এমনিতেই ওষুধ কেনাসহ সিনহার চিকিৎসায় খরচ চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে তার। এ অবস্থায় সন্তানকে বাঁচাতে মা ফেন্সি আক্তার সমাজের বিত্তবান ও সরকারের সহযোগিতা কামনা করেছেন। ফেন্সি আক্তার বলেন, সিনহা গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার ছোট শিমুলতলা গ্রামের কৃষক সিরাজুল ইসলামের মেয়ে । প্রায় ১০ বছর পূর্বে বিয়ে হলেও এক ছেলে ও এক মেয়ে সন্তান জন্ম নেয়ার পরে পুনরায় তিনি আর একটি বিয়ে করেন ৷ বর্তমানে ২য় স্ত্রী'কে নিয়ে প্রথম স্ত্রী- সন্তানের কোন খোঁজ খবর না নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে পলাতক ও গা ঢাকা দিয়েছে ৷ সে প্রথম স্ত্রী ফেন্সির নিকট থাকা অবস্থায় স্থানীয় কিছু দাদন ব্যবসায়ীর নিকট ধারদেনা ও ২য় বিয়ে করে প্রায় ১ বছর ধরে পালিয়ে গেছেন। এখন পর্যন্ত তার কোন খোঁজ খবর নাই । বর্তমানে মানুষের বাসায় কাজ করে ফেন্সি জীবন জীবিকা চালায় । এই টাকা দিয়ে তার নিজেরই চলতে কষ্ট হয়। এরপর শিশু বাচ্চার ঔষধ কেনা ও চিকিৎসার খরচ যোগান তার জন্য অনেক দুরুহ । এই পরিস্থিতিতে মেয়ের চিকিৎসার খরচ চালানো তার পক্ষে দুঃস্বপ্নের মতো। তিনি জানান, জন্মের কিছুদিন পরই সিনহার জ্বর দেখা দেয়। তখন স্থানীয় শিশু চিকিৎসক ডা.আব্দুল মালেক (এমবিবিএস) এর ব্যবস্থাপত্রে তাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়। কিন্তু তাতেও ভালো না হওয়ায় তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে হৃদরোগ বিভাগে ভর্তি করা হয়। পরে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে হৃদরোগ বিভাগের কনসালটেন্ট কার্ডিওলোজিস্ট ডা.আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জানান, সিনহার হার্টে ছিদ্র আছে (Situs Solitus Levocardia- Two ASD's flow was seen)। যত দ্রুত সম্ভব তার অপারেশন করতে হবে। ফেন্সি বলেন, ইতিমধ্যে এগার মাস শেষ হয়ে গেছে। এখন আমার মেয়েটিকে নিয়ে খুবই দুশ্চিন্তা হচ্ছে। আমার মেয়েটিকে বাঁচানোর জন্য সরকার ও সমাজের বিত্তবানদের আর্থিক সহযোগিতা প্রয়োজন। সবাই আমার মেয়েটিকে বাঁচানোর জন্য সাহায্য করবেন। সহযোগিতা পাঠানোর জন্য- হিসাবের নাম: মোছাঃ ফেন্সি আকতার (সিনহার মা), হিসাব নম্বর- ০১০০১৩৮৩২০৮৬৮, জনতা ব্যাংক, পলাশবাড়ী শাখা, গাইবান্ধা অথবা নগদ একাউন্ট- ০১৭২৪-০৮৬৪২৩ ৷