রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২
The Report
ডেপুটি স্পিকার এ্যাড. ফজলে রাব্বী এমপি'র মরদেহে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন : রাষ্ট্রীয় সম্মান প্রদান

ডেপুটি স্পিকার এ্যাড. ফজলে রাব্বী এমপি'র মরদেহে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন : রাষ্ট্রীয় সম্মান প্রদান

আশরাফুজ্জামান সরকার, গাইবান্ধাঃ-
প্রকাশের সময় : July 28, 2022 | বাংলাদেশ

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ও গাইবান্ধা-৫ আসনের সাংসদ আলহাজ্ব এ্যাড. ফজলে রাব্বী মিয়ার মরদেহ ঢাকা থেকে তার জন্মস্থান গাইবান্ধার সাঘাটায় এসে পৌঁছেছে। আজ ২৫ জুলাই দুপুর ১টা ৩২ মিনিটে উপজেলার বোনারপাড়া কাজী আজাহার আলী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মরদেহবাহী সশস্ত্র বাহিনীর হেলিকপ্টারটি অবতরণ করে। এরপর সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য মরদেহ রাখা হয় ভরতখালী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে। সেখানে বিকেল ৩টায় তার দ্বিতীয় জানাজা শেষে মরদেহ নিজ বাড়ি গটিয়া গ্রামে নেওয়া হবে। সেখানে বিকেল সাড়ে ৫টায় শেষ জানাজা শেষে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় পারিবারিক কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হবে। ফজলে রাব্বী মিয়ার ছোট ভাই মো. ফরহাদ রাব্বী ও মেয়ে ফারজানা রাব্বী বুবলি জানান, জানাজা নামাজ ও কবর খননসহ দাফনের সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে পারিবারিক কবরস্থানে বাবা-মা ও দুই ছেলের কবরের পাশে তাকে দাফন করা হবে। উল্লেখ্য, এর আগে গত শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে আমেরিকার মাউন্ট সাইন হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন ফজলে রাব্বী মিয়া এমপি। এর পর আজ ২৫ জুলাই সোমবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে এ্যাড. ফজলে রাব্বী মিয়া এমপির মরদেহ বাংলাদেশে পৌঁছায়। তার প্রথম জানাজা সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় ঈদগাহ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়। এরআগে তিনি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে গত ৯ মাস ধরে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। ১৯৪৬ সালের ১৫ এপ্রিল গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা উপজেলার গটিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ফজলে রাব্বী মিয়া এমপি। পেশায় আইনজীবী এ্যাড. ফজলে রাব্বী মিয়া এমপি গাইবান্ধা-৫ আসনের টানা সাতবারের সংসদ সদস্য ছিলেন। এছাড়া তিনি জাতীয় সংসদের পরপর দুইবারের ডেপুটি স্পিকারের দায়িত্ব পালন করেন। বর্ষীয়ান এ নেতার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে গাইবান্ধা জেলা-উপজেলার আওয়ামীলীগ এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের মধ্যে। তারা মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।