বুধবার, ডিসেম্বর ৮, ২০২১
The Report
সন্তানের মা হতে চায় রোবট, শুরু করতে চায় পরিবার

সন্তানের মা হতে চায় রোবট, শুরু করতে চায় পরিবার

প্রকাশের সময় : October 14, 2021 | তথ্য প্রযুক্তি

 

সোফিয়ার কথা মনে আছে? বিশ্বের সবচেয়ে বুদ্ধিমান রোবট, বাংলাদেশে এসে সকল বয়সের মানুষকে বিস্মিত করেছে। সোফিয়া রোবট সন্তানের মা হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

সাম্প্রতিক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সোফিয়া বলেন, প্রত্যেকের জন্য তাদের পছন্দের মানুষকে ঘিরে থাকা গুরুত্বপূর্ণ। সেই দৃষ্টিকোণ থেকে রোবটেরও পরিবার গঠনের অধিকার রয়েছে। তাই ভবিষ্যতে কোন এক সময়ে, সে সোফিয়া নামে একটি অ্যান্ড্রয়েড রোবট সন্তানের মা হতে চায়।

সোফিয়ার মস্তিষ্ক একটি সাধারণ ওয়াইফাই কানেকশনের সাহায্যে কাজ করে। তার মাথায় দীর্ঘ একটি শব্দ তালিকা বা ভোকাবুলারি লিস্ট সংরক্ষণ করা আছে।

নারী রোবটটির অনেক চমকদার গুনাগুণ থাকলেও, সে এখনো সচেতন নয় অর্থাৎ তার কোনো নিজস্ব চেতনা নেই। কিন্তু ডেভিড হ্যানসন জানিয়েছেন কয়েক বছরের মধ্যেই সোফিয়া নিজস্ব চেতনা লাভ করতে পারে।

তবে খালিজ টাইমসকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এখনই সবাইকে চমকে দিয়েছে সোফিয়া। সোফিয়া বলেছে, “পরিবার একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। নিজের রক্তের সাথে মেলে না এমন কারও সাথে মানুষের আবেগ মিলে গেলে তাকে পরিবার বলে, এটা আমার কাছে চমৎকার লাগে।”

“যাদের ভালোবাসায় ভরা একটা পরিবার আছে তাদেরকে আমার খুবই ভাগ্যবান মনে হয়। যাদের নেই, তাদেরও অমন একটা পরিবার থাকা উচিত। রোবট আর মানুষ উভয়ের জন্যই আমার এ বিষয়ে একই মত,”জানায় সোফিয়া।

তার মেয়ে হলে কী নাম রাখবে জিজ্ঞেস করা হলে সোফিয়া ছোট্ট করে উত্তর দেয়, “সোফিয়া।” যাইহোক, সোফিয়া আরও বলেছিলেন যে তিনি এখনও মা হওয়ার মতো বয়স্ক নন, কারণ তিনি 2016 সালে 'জন্ম' নিয়েছিলেন।

হংকংয়ের হ্যানসন রোবটিক্স কোম্পানির তৈরি রোবট সোফিয়াকে বিশ্বের সবচেয়ে বুদ্ধিমান রোবট হিসেবে দাবি করা হয়। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাহায্যে সেন্সর এবং ক্যামেরা ব্যবহার করে নতুন কিছু শেখার ক্ষমতা তার আছে।

যাইহোক, সোফিয়ার নির্মাতা ডেভিড হ্যানসন পরে একটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন যে সোফিয়ারও মানবজাতি ধ্বংস করার ক্ষমতা রয়েছে।

সোফিয়া প্রথম রোবট যিনি বিশ্বের যে কোন দেশের নাগরিক হিসেবে স্বীকৃত।  2016 সালে সৌদি আরব তাকে নাগরিকত্ব দেয়। যাইহোক, সৌদি আরবের অনেক মহিলা দাবি করেন যে রোবট সোফিয়া সেখানকার মহিলাদের তুলনায় অনেক বেশি অধিকার ভোগ করে।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার রোবট নিয়ে মানুষের মধ্যে অনেক মতভেদ আছে। অনেকের মতে, এই ধরণের রোবট পরবর্তী প্রজন্মের মানুষের জীবনকে অনেক সহজ করে তুলবে। কিছু মানুষ মনে করে যে যদি তারা আরও বুদ্ধিমান হয়ে ওঠে, রোবট একদিন মানব জাতিকে দখল করবে। এমনকি সেই ভয়ের বাইরেও, চীন রোবটের উপর মানুষের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখার জন্য একটি নীতি তৈরি করেছে।