বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৩, ২০২০



সদ্য সংবাদ

  •   বাংলাদেশের সব খবর সহ আন্তর্জাতিক, বিনোদন, খেলার খবর ও অন্যান্য সব ধরণের খবর সবার আগে অনলাইনে পেতে চোখ রাখুন "টিএনএন" এ। আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও।

বাংলাদেশ

মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ দুই সন্তানের জননী জুলেখা পারভীন (৪৫) দীর্ঘ ২৫ বছর পূর্বে সিএনজি চালক আতোয়ার রহমানের সাথে বিয়ে হয়। ঐ সময় থেকে জুলেখা মাঝে মধ্যে বুকের বেথায় অসুস্থ হয়ে পরতো।

গরিব সিএনজি চালক স্বামী তার স্বাধ্যমতো কবিরাজি, হোমিওপ্যাথিসহ বিভিন্ন ধরণের চিকিৎসা করে আসচ্ছেন। গত রমজান মাসে জুলেখার অসুস্থ্যতা বেড়ে গেলে, তার স্বামী বিভিন্ন জায়গায় ধার দেনা করে জুলেখাকে রজশাহী চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান।

রাজশাহীর হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. রাজেশ কুমার ঘোষ তাকে দেখে বলেন জন্ম থেকেই তার হার্ডে ছিদ্র রয়েছে। তাকে আরো উন্নত্য চিকিৎসা পরামর্শ দেন। এর পর জুলেখাকে ন্যাশনাল হার্ড ফাউন্ডেশন হাসপাতাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটে এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল ইউনিভারসিটি ঢাকায় চিকিৎসা করাতে গিয়ে জুলেখার স্বামী সর্বসান্ত হয়ে গেছেন। এখন তার চিকিৎসা করার স্বামর্থ নাই। সম্প্রতি ডাক্তারগণ বলছেন জুলেখার ওপেন হার্ড সার্জারি করা প্রয়োজন। কিন্তু জুলেখার গরীব পিতা-মাতা ও সিএনজি চালক স্বামী আতোয়ারের পক্ষে চিকিৎসার ভার বহন করার আর্থিক সামর্থ না থাকায়, চোখের সামনে তার স্ত্রী জুলেখা ভীষণ কষ্ট পেয়ে ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে ধাবিত হচ্ছে।

জুলেখাকে বাঁচাতে চিকিৎসার জন্য কয়েক লক্ষ টাকার প্রয়োজন। নিরুপায় আতোয়ার ও জুলেখা সমাজের স্বচ্ছল বৃত্তবান দানশীল ব্যক্তিদের কাছে হাত বারাচ্ছেন। দয়া করে যদি কোন স্বহৃদয় ব্যক্তি জালেখার জীবন বাঁচাতে আর্থিক সাহায্যর হাত বাড়িয়ে দেন, তবে মাতৃহারা হতে বেচে যায় জুলেখার দুই সন্তান ও জুলেখার জীবন।

কোন স্বহৃদয়বান ব্যক্তি আর্থিক সহায়তা করতে চাইলে জুলেখার স্বামী আতোয়ার রহমানের বিকাশ নম্বর ০১৭৪০৯১৮৯০১ এবং ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড নওগাঁ জেলার মহাদেবপুর শাখার সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর ৫০ এ সহায়তা দান করে মানবিকতার উৎকৃষ্ট উদাহরণ সৃষ্টি করবেন।



ফেসবুকে আমরা